বৃহস্পতিবার | ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

সাংবাদিকতার একাল-সেকাল

প্রকাশিত :
সৈয়দ আব্দুল মান্নান :
অনুভূতি থেকে বলছি এখন আর সংবাদের সার্থকতা খুঁজে পাচ্ছি নাা। বাহুবল থেকে আমার প্রিয় সম্পাদক মতি ভাইর বাংলা বাজার পত্রিকায় লিখতাম। একবার বাংলা বাজার পত্রিকায় লিখলাম বাহুবলে একই পরিবারে ডায়রিয়ায় ৭ জন আক্রান্ত। নিউজটি গুরুত্ব সহকারে প্রথম পৃষ্ঠায় রিভার বক্সে ছাপা হলো। পরদিন পত্রিকা বাহুবলে আসার সাথে সাথে হবিগঞ্জের সিভিল সার্জন এর নেতৃত্বে তদন্ত টিম স্নানঘাট গ্রামে হাজির। সেখানে আমারও ডাক পড়লো। তদন্ত টিমের সাথে গেলাম।
নিউজ এর যথার্থতা পাওয়া গেল। স্বাস্থ্য সহকারিকে শোকজ করা হলো। এখন নিউজ লিখলে প্রশাসন, পাঠক , সচেতন মহল দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভোগেন। আসলে ঘটনাটি কি ঠিক? নিউজ দেখে এখন আর তদন্ত টিম গঠন হয়না। তখন আমরা লিখেছি গণ মানুষের সুখ-দুঃখের কথা উন্নয়ন বঞ্চিত এলাকার কথা, অধিকার বঞ্চিত মানুষের কথা। আমার মনে আছে ৯৬ সালে বন্যার কথা। আমি লিখলাম বাহুবলের পানিবন্দী বানভাসি মানুষের দুঃখ দেখে যাবেন কি প্রধানমন্ত্রী?
বাংলা বাজার পত্রিকার প্রথম পৃষ্ঠায় ছাপা হলো নিউজটি। তখন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। নিউজ পড়ে পরদিন প্রধানমন্ত্রী পাঠালেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী তরিকুল ইসলামকে বাহুবলের বন্যা দুর্গত এলাকা পরিদর্শনে। তিনি পরিদর্শন করে গেলেন বাহুবলকে বন্যা দুর্গত এলাকা ঘোষণা করা হলো। এ ছিল নিউজ এর সার্থকতা। যাক আমি অসুস্থ সচেতন মহলের সাথে অনুভূতি শেয়ার করলাম। সংবাদ ও সাংবাদিকতা আদর্শ পথে পরিচালিত হউক এ প্রত্যাশা করি।
লেখক : প্রবীন সাংবাদিক, বাহুবল, হবিগঞ্জ।
আজকের সর্বশেষ সব খবর