বুধবার | ৪ঠা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

আমার একজন কাছের মানুষ ছিল নুরুল আমিন চৌধুরী

প্রকাশিত :
এম নুরুল ইসলাম : না ফেরার দেশে চলে গেলো নূরুল আমিন! ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।আল্লাহ্ তাঁকে জান্নাতুল ফিরদাউস নছিব করুন।
আশীষ কুমার রায় এবং আঃ মুকিত সর্দারের শোক সহ্য করার আগেই খুব তাড়াতাড়ি চলে গেলো আমার খুব কাছের আরও একজন মানুষ নূরুল আমিন চৌধুরী, বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের দুই মেয়াদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান।নূরল আমিন চৌধুরী আমার সমসাময়িক এবং একজন ভাল বন্ধু ছিল।বানিয়াচং উপজেলার এক ধনাঢ্য পরিবারে নূরুল আমিনের জন্মস্থান মকা, মামার বাড়ি আমার নিজ উপজেলা শাল্লার কাশীপুর গ্রামে।সে মাধ্যমিক পর্যায়ে লেখাপড়া করেছে মামার বাড়ি থেকে আঙ্গাউড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে এবং পরে সুনামগঞ্জ সরকারি কলেজে।
আমি ১৯৭৮ সাল থেকে জীবিকার তাগিদে ঢাকায় এবং তখন থেকেই নূরুল আমিনের সঙ্গে আমার ঘনিষ্ঠতা।সেও আমার মতই ক্যারিয়ার গড়ার উদ্দেশ্যে পুরান ঢাকার দক্ষিণ মইশুন্ডিতে একটি পুরাতন ছাপাখানা ক্রয় করে বিভিন্ন অফিস,আদালত এবং ব্যাংক পাড়া মতিঝিলে ব্যবসায়িক সম্পর্ক স্হাপনের জন্য প্রাণপনে চেষ্টা শুরু করে।আমি তখন আগামাসি লেনে এক ব্যাচেলার মেসে থাকি, প্রতিদিন সন্ধ্যায় আমাদের দুজনের মধ্যে দেখা সাক্ষাৎ এবং চায়ের আড্ডা ছিল নিয়মিত।এর কিছুদিন পর বাড়ি যাবে বলে নূরুল আমিন আমার নিকট থেকে বিদায় নিয়ে একেবারে লাপাত্তা! না, তেমন কিছুই নয় তবে তার মত পাল্টিয়ে সরাসরি রাজনীতি করবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে যা আমি লোকমুখে শুনেছি।পরে অবশ্য বিভিন্ন সময়ে ঢাকা আসলে আমার অফিসে বা বাসায় নূরুল আমিন দেখা সাক্ষাৎ করেছে।
ইতোমধ্যে নূরুল আমিন একজন জনপ্রিয় রাজনৈতিক নেতা এবং দুই মেয়াদের সফল উপজেলা চেয়ারম্যান।
মাসেকখানেক আগে তার অসুখের সংবাদ শুনে বন্ধুবর মালেক এজাজসহ হবিগন্জ মুসলিম কোয়ার্টারের বাসায় তাকে দেখতে যাই।চা-নাস্তার ফাঁকে ফাঁকে পুরানো স্মৃতি নিয়ে অনেক আলাপ চারিতা।নূরুল আমিনের লিভার সিরোসিস হয়েছিল, ইহা একটি জটিল রোগ এবং প্রতিস্থাপন ছাড়া এর কোন যুতসই চিকিৎসা নেই।প্রতিস্থাপন আরও জটিল এবং ব্যয়বহুল তো বটেই।ইহা সত্বেও নূরুল আমিন এবং তার পরিবার আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছিল কিন্তু বিধাতা তাকে আর সে সূযোগ দেন নি।গতকাল দিল্লির একটি হাসপাতালে নূরুল আমিন শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করে।মানুষ হিসাবে নূরুল আমিন একজন নিরহংকারী ভদ্রলোক, সদালাপী এবং বন্ধুবৎসল এর কোনো জুড়ি নেই।তার মৃত্যুতে আমি গভীরভাবে শোকাহত! আল্লাহ্ তাকে মাগফিরাত নছিব করুন এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারকে এই কঠিন শোক বহন করার তৌফিক দান করুন।আ-মি-ন।
লেখক : সভাপতি – এল আর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় এর প্রাক্তন ছাত্র কল্যাণ পরিষদ, বানিয়াচং, হবিগঞ্জ।
আজকের সর্বশেষ সব খবর