শনিবার | ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

হবিগঞ্জ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে সহপাঠী ’৮৬-এর সাধারন সভা পরিণত হয় মিলনমেলায়

প্রকাশিত :

তরঙ্গ ডেস্ক : সবার পরনে ধবধবে সাদা ফুল হাতা টি-শার্ট। ঝাঁক বেধে হাঁটাহাটি করছেন। সবার বয়স ৫০ এর কাছাকাছি। কথার ফুলঝুড়ি ছুটিয়ে কোথায় যেন হারিয়ে যাচ্ছেন। হারিয়ে যাচ্ছেন ফেলে আসা স্মৃতিময় দিনগুলোতে। তারা ভাল করেই জানেন হারানো দিনগুলো আর ফিরে আসবে না। তাতে কি ! সবাই যদি কিছু সময়ের জন্যে মনে করেন এই বুঝি আমাদের দূরন্ত কৈশোর। স্কুলের এই আঙ্গিনাতো সেই আঙ্গিনাই। হ্যাঁ। শুক্রবার এমনই একটি অন্যরকম সভায় মিলিত হয়েছিলেন হবিগঞ্জ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের কিছু প্রাক্তন শিক্ষার্থী। ২০২০ সালের এপ্রিল মাসে তারা আত্মপ্রকাশ করেছিলেন ‘সহপাঠী ’৮৬’ নামে। ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হবিগঞ্জ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে ১৯৮৪-৮৫ই শিক্ষাবর্ষে এসএসসি রেজিষ্ট্র্যাশনভূক্ত এবং ১৯৮৬ সালে এসএসসি পরীক্ষা উত্তীর্ন শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে এ সামাজিক সংগঠন গড়ে তোলা হয়। শুক্রবার ছিল ওই সংগঠনের প্রথম বার্ষিক সাধারণ সভা। হবিগঞ্জ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত ওই সভাই কার্যতঃ পরিণত হয় সহপাঠীদের মিলন মেলায়। নানা পর্বের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল বিকেলে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে বিচরণ ও ফটোসেশন, সন্ধ্যার পর বার্ষিক সাধারণ সভা, স্মৃতিচারণ, র‌্যাফেল ড্র ইত্যাদি। স্মৃতিচারণ পর্বে সহপাঠীরা এমনভাবে তাদের স্কুল জীবনের অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরছিলেন তাতে পুরোনো স্মৃতি জীবন্ত হয়ে উঠে। অনেকেই শিক্ষকদের মায়ামমতার কথাও বলেন, বলেন বেত্রাঘাতের কথাও। সর্বপোরি শিক্ষকদের প্রশংসায় তারা ছিলেন পঞ্চমুখ। অনুষ্ঠানের অন্যতম আর্কষণ ছিল প্রবাসী সহপাঠীদের ভিডিও কনভারসেশন। প্রজেক্টরে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, যুক্তরাজ্য ও মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন স্থান থেকে ভারচুয়্যালি যোগ দেন সহপাঠী ৮৬ এর সদস্যরা। তাদের মধ্য ছিলেন কাজী রেজাউদ্দিন হায়দার, জায়েদুল মোহিত খান, মোঃ ফরিদ আহমেদ, ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী মুবিন, সালাউদ্দিন মোঃ বেলাল, মোঃ হারুনুর রশীদ চৌধুরী, রুহুল আমীন রকিব, সৈয়দ জিয়াউল ইসলাম তারেক, চৌধুরী সাজলী সামছ সোহেল, রুহুল আমীন হীরা, তাফারোজ হোসেন আরমান প্রমুখ। সভাপ্রাঙ্গনে যারা

 

 

ছবি- ৮৬ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা।

উপস্থিত ছিলেন তারা হলেন মোঃ এনামুল হক সেলিম, শামসুল আলম খান তোফা, মোঃ নাজমুল মোস্তাফা, প্রবাক করীম, মোঃ আজাদ মিয়া, মোঃ কামরুজ্জামান নয়ন, মোঃ ইকবাল হোসেন ভূইয়া, মোঃ আব্দুল হাই, শফিকুল ইসলাম, মোঃ নূরুল কবির তরফদার, মোঃ সাজিদুর রহমান, মোঃ হাবিবুর রহমান সওদাগর, মোহাম্মদ তাহির মিয়া, সরদার হানিফ মোহাম্মদ শোয়েব, শ্যামাপদ চক্রবর্ত্তী, গৌতম দেব, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, মোঃ ফয়েজ উদ্দিন, সৈয়দ মুফাজ্জেল সাদাত মুক্তা, মোঃ মোতাকাব্বির খান আক্কাস, আব্দুল হালীম, মোঃ আবু তাহের, রফিকুল হাসান চৌধুরী তুহিন, মীর সালাহউদ্দিন আহমদ জুনেদ, মোঃ মহিবুর রহমান জুনেল, কামাল উদ্দিন সেলিম, মোঃ শিহাব উদ্দিন চৌধুরী, বিশ^জিৎ কুমার বণিক, মোঃ বশিরুল আলম কাওসার, সজল রায়, মোঃ খালেদুজ্জামান সেলিম, জন্টু কুমার রায়, নিলাদ্রী শেখর টিটু, মৃদুল চন্দ্র রায়, মোঃ আব্দুর ওয়াহেদ, মোঃ মঈন উদ্দিন খান, মোঃ হুমায়ূন খান, পরিমল পাল, মোঃ আব্দুল আওয়াল কদ্দুছ, মাসুদ করিম আখন্জী তাপস, খায়রুল গনি, নিহারেন্দু ও মোঃ মোসাহিদ হোসেন। বার্ষিক সাধারণ সভায় সংগঠনের ভবিষ্যত কর্মপরিকল্পনা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা হয়। স্কুল জীবনের সহপাঠীদের মধ্যে সৌহার্দ্য জোরদার করা ছাড়াও সমাজ ও সমাজের মানুষের জন্য কল্যাণমুলক কর্মসূচী পরিচালনার কথাও উঠে আসে। নতুন প্রজন্মকে শিক্ষায় উৎসাহিত করতে অনুষ্ঠানে হবিগঞ্জ সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী সৈয়দ ইয়াসির ইমাদের হাতে টি-শার্ট তুলে দেন সহপাঠী ৮৬ এর সদস্যরা। বার্ষিক সাধারণ সভায় সংগঠনের গঠনতন্ত্র অনুমোদন করা হয়। মৃত্যুবরণকারী ৭ জন সহপাঠীর জন্য শোকপ্রস্তাব গৃহীত হয়।

আজকের সর্বশেষ সব খবর