শনিবার | ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

বানিয়াচংয়ে আল্লামা শাহ আহমদ শফী (রহঃ) স্মরণে আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত :

আবদাল মিয়া, বানিয়াচং থেকে : বানিয়াচংয়ে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর, দারুল উলূম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক, শায়খুল ইসলাম সাইয়্যিদ হোসাইন আহমদ মাদানী (রঃ) এর অন্যতম খলিফা, আল্লামা শাহ আহমদ শফী (রঃ) এর স্মরণে আলোচনা ও দুআ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১অক্টোবর) সকাল ১১টায় আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া দারুল কোরআন মাদরাসা জামে মসজিদে মাওলানা আব্দুল বাছিত আজাদ ( বড় হুজুর) এর সভাপতিত্বে ও মাদরাসা শিক্ষা সচিব মাওলানা গোলাম কাদির এর সঞ্চালনায় মরহুমের জীবন ও কর্ম নিয়ে বক্তব্য দেন শায়খুল হাদিস আল্লামা ফজলুর রহমান, মাদ্রাসাতুল হারামাইন এর প্রধান পরিচালক আল্লামা মখলিছুর রহমান, প্রিন্সিপাল মাওঃ আবদাল হোসেন খান, মুফতি কাজী আতাউর রহমান, হাজী ফরিদ উল্লাহ, মাওঃ বশির আহমদ, মাওঃ আব্দুল ওয়াদুদ, মাওঃ শফিকুর রহমান, মাওঃ সুফি আহমদ, মুফতি মাওঃ আহমদ আলী, মাওঃ শায়খ সিরাজুল ইসলাম, মুফতি আমির আহমদ, মাওঃ মুজিবুর রহমান, মাওঃ সাজ্জাদুর রহমান, মাওঃ নুরুদ্দীন, মাওঃ সাদিক আহমদ, মাওঃ আবুবকর, মাওঃ মাহবুবুর রহমান ও মাওঃ কামাল উদ্দিন প্রমুখ।

 

ছবি- স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখছেন আল্লামা শায়খ মখলিছুর রহমান দা:বা:।

সভায় বক্তাগণ বলেন, আল্লামা আহমদ শফী (রহঃ)কে কালজয়ী ও বিস্ময়কর এক ব্যক্তিত্ব।তিনি সাধনা করেই মণীষী হয়েছেন। তিনি একজন কৃষকের সন্তান। আপন কর্মগুণে শাইখুল ইসলামের মর্যাদায় অভিষিক্ত হয়ে বাংলার মুকুটহীন সম্রাট হিসেবে অনন্য নজির স্থাপন করেছেন তিনি। তিনি ছিলেন বিনয়ী, নেতৃত্বগুণ, তাকওয়া, ইবাদত, জ্ঞানার্জন, অধ্যয়ন, সময়ানুবর্তিতা ও দায়িত্ববোধ, ইসলামের সঠিক ধারকবাহক এবং এ যামানার মোজাদ্দেদ। আল্লামা আহমদ শফী ( রহ.) এত বড় আলেম ছিলেন যে, ইলমী গভীরতায় বিশ্বের বড় বড় ইসলামি স্কলারগণ মুগ্ধ ছিলেন। শায়খুল ইসলাম আল্লামা হোসাইন আহমদ মাদানী রহ.’র ফয়েজ ও বরকতে এ উপমহাদেশের গন্ডি পেড়িয়ে বিশ্বব্যাপী তাঁর দ্বীনি খেদমত আগামী প্রজন্মের জন্য আদর্শের প্রতীক হয়ে থাকবে। তিনি ২০১৮ সালে জাতীয় সংসদে বিল পাশের মাধ্যমে কওমি মাদ্রাসার দাওরায়ে হাদিসের সনদে রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি, ২০০৯ সালে দেশের সিনিয়র ইসলামি ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে একটি যৌথ বিবৃতি প্রদান করেন। যেখানে ইসলামের নামে সন্ত্রাস ও জঙ্গি কার্যক্রমের নিন্দা জানানো হয়। ২০১০ সালে তিনি অরাজনৈতিক ইসলামি সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেন। সেই থেকে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ব্যাপকভাবে সমাদৃত হন তিনি। এস্মরণ সভায় দেশের সামাজিক, রাজনৈতিক, শিক্ষক, সাংবাদিকসহ সর্বস্তরের ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় দেশ ও জাতির মঙ্গল এবং আল্লামা শাহ্ আহমদ শফী (রহ) এর রুহের মাগফেরাত কামনায় দোয়া পরিচালনা করেন প্রবীন আলেম মাওঃ আলী হায়দার।

 

আজকের সর্বশেষ সব খবর