বুধবার | ৪ঠা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

আল মাহমুদের যাত্রা

প্রকাশিত :
মুসা আল হাফিজ :
দেখলাম,আল মাহমুদ গল্প করছেন ঈশপের পশু- পাখির সাথে। রাখাল ছেলের মিথ বদলে দিয়ে লেখছেন মিথ্যেবাদী রাখাল। কুষাণ কুমারী আর কিরাতের কৃষকেরা কৌমের কেলিকে কল্লোলিত করছিলো, চক্রবর্তী রাজার অট্রহাস্যে ভয়ার্ত হলো তারা। তখনই অনিবার্য আল মাহমুদ!
তখনই বখতিয়ারের ঘোড়া।
আল মাহমুদের দহলিজে ইয়েটস- বুদলেয়ার। দরোজায় মিশেছে তিন দিকের তিন পথ।
একপথে ফুলকুড়ানো শিশুদের নিয়ে জসীম উদদীন যাচ্ছেন মামার বাড়ী!
একপথে পাখির নীড়ের মতো চোখ মেলে সুশীতল বনলতা সেন!
একপথে পাশব সভ্যতাকে পদাঘাত করে পুরনো তারার সাথে একমনে কথা বলে ডাহুকের কবি ফররুখ!
আমি দুধভরা এক চাঁদের বাটি নিয়ে আল মাহমুদের বাটিতে এসেছি। তিনি এক টিনের বাকসো থেকে ছড়িয়ে দিচ্ছেন হাজার হাজার নদী, ধানখেত, সাধ্যমতো ঘর-বাড়ী, বর্ণিল কামকেলি, বঙ্গোপসাগরের হাঙ্গর, ফেব্রুয়ারির একুশের দুপুর বেলার বৃষ্টি …
আমার অপেক্ষা শুধু দীর্ঘ হচ্ছে
হাজী শরিয়তের মতো গলা ছেড়ে বললাম
আল মাহমুদ বেরিয়ে আসুন!
ঈগল গিলে খাচ্ছে ইতিহাস!
শারমেয় কামড়ে নিচ্ছে কাশ্মীর!
পূঁজির ফেরাউন সদলে হামলে পড়ছে মুসার উপর!
পাগলা কুত্তার মতো চিল্লাচ্ছে বিকলাঙ্গ ইজম!
হারামজাদারা চোরাইমালের মতো সস্তাদামে বিক্রি করছে বাংলাদেশ!
আল মাহমুদ বেরিয়ে এলেন!
পিঁপড়ে সারির মতো কালোমানুষের ধারা সরোষে জেগে উঠলো!
আমরা পথ চলছি,দুলছে ইতিহাস!
আমরা পথ চলছি, হচ্ছে বজ্রপাত!
আমরা পথ চলছি,রক্তবৃষ্টি,বোমাবৃষ্টির ভেতর উচ্চারিত হচ্ছে মুক্তির তাকবির!
চারদিকে অগণন আলোর সন্তান!
অগণিত ক্রন্দসী ঈভের শপথ!
আমরা এখন অতিকায় সাম্রাজ্যবাদী ডায়নোসোরের মুখোমুখি! কে দাঁড়াবে এবার!!
আল মাহমুদ দাঁড়ালেন। বললেন- ‘ শোনো আমেরিকা,তোমার জবাব দিচ্ছে একজন কবি!’
আমরা জবাব দিয়েই এগুতে থাকি। আমরা বিনিময় করি অদৃশ্য ঈমান। আমাদের পদধ্বনি মৃতশতাব্দীর বুকে জাগায় যৌবন।
ঢাকার অন্ধকার রাতে ঐতিহ্যের মহল্লায় হানাদার কালো শেয়ালদের তাড়িয়ে শুরু করা আমাদের অভিযান গোলার্ধে গোলার্ধে কান্না ও বিনাশের বিপরীতে সৃষ্টি ও ভালোবাসার আযান হয়ে অনন্তকালের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে!
দেখতে পাচ্ছো?
লেখক : কবি, সাহিত্যিক, চিন্তক ও দার্শনিক, ঢাকা।
আজকের সর্বশেষ সব খবর