ঢাকা ১১:১২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত Logo গ্যানিংগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে নানা আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উদযাপন Logo মহান বিজয় দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে বানিয়াচং মডেল প্রেসক্লাব Logo দেশবাসীকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ‘বানিয়াচং ইসলামি নাগরিক ফোরাম’ নেতৃবৃন্দ Logo নূরানী শিক্ষা বোর্ডে মেধা তালিকায় ২য় হয়েছে গ্যানিংগঞ্জ বাজার নূরানী মাদ্রাসার ছাত্রী মুনতাহা আক্তার Logo বানিয়াচংয়ে ১২কেজি গাঁজাসহ কুখ্যাত ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার Logo বানিয়াচং শাহজালাল কে.জি স্কুল ২০২৩ বৃত্তি পরীক্ষায় ঈর্ষণীয় সাফল্য Logo চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন ডা. ইলিয়াছ একাডেমির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত Logo ৪০তম তাফসিরুল কোরআন মহা সম্মেলন সফল করায় আলহাজ্ব রেজাউল মোহিত খানের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ Logo ইফার সাবেক ফিল্ড অফিসার আব্দুল ওয়াদুদের মৃত্যুতে জেলা মউশিক কল্যাণ পরিষদ নেতৃবৃন্দের শোক

৯৯৯ কল দেওয়ার পর বানিয়াচংয়ে পুলিশের সহযোগিতায় লাশ দাফন

  • তরঙ্গ ২৪ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৩:৩৪:৫০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩ অক্টোবর ২০২০
  • ১৬৯ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : বানিয়াচংয়ে ৯৯৯ কল দিয়ে পুলিশের সহযোগিতায় লাশ দাফন করেছেন এলাকাবাসী। এ নিয়ে এলাকায় প্রাণ চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শুক্রবার বাদ জুময়া উপজেলা সদরের ৪নং দক্ষিণ-পশ্চিম ইউনিয়ন এর অন্তর্গত পাঠানটুলা গ্রামে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, পাঠানটুলা গ্রামের মৃত আব্দুল করিম মিয়ার ছেলে আব্দুর রউফ মিয়া (৪৫) অসুস্থজনিত কারণে গতকাল শুক্রবার সকাল ১১টায় নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেন। ইন্নালিল্লাহি …. রাজিউন। তাঁর স্বজনরা পঞ্চায়েতী কবরস্থানে কবর খনন করতে গেলে বাধা প্রদান করেন মীরের হাটি এলাকার কতিপয় গ্রাম্য মাতব্বর । এতে লাশ নিয়ে চরম বেকায়দায় পড়েন মৃতের স্বজনরা। নিরুপায় হয়ে ৯৯৯ কল দিলে ১০/১৫ মিনিটের ভিতরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন বানিয়াচং থানার এস আই শিমুল রায় এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ। এসময় পুলিশের উপস্থিতিতে কবর খনন, জানাযা ও দাফন করা হয়। এঘটনা জানাজানি হলে কতিপয় গ্রাম্য মাতব্বরদের ধিক্কার দেন উপস্থিত লোকজন। এ ব্যাপারে মৃতের স্বজন মোঃ আব্দাল মিয়া তরঙ্গ টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, পাঠানটুলা কবরস্থানে কবর খনন করতে গেলে এলাকার জনৈক ব্যক্তি বাধা প্রদান করেন। এমনকি এখান থেকে না সরলে আমাকে খুন করারও হুমকি প্রদান করা হয়। এতে করে ৯৯৯ ফোন দিলে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বানিয়াচং থানার পুলিশ গিয়ে লাশ দাফনে সহযোগিতা করেন। এতে করে পুলিশের প্রতি আমরা এলাকাবাসী চির কৃতজ্ঞ। পাশাপাশি আর যাতে করে আর কারও সাথে ঐ কতিপয় গ্রাম্য মাতব্বররা এহেন আচরণ না করে তাতে আইন শৃংখলা বাহিনীসহ দেশবাসীর সহযোগিতা কামনা করি। বানিয়াচং থানার এস আই শিমুল রায় জানান, ৯৯৯ কল পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ দাফনে সহযোগিতা করি।
উল্লেখ্য, ১৯৫০ সালে পাঠানটুলা গ্রামে সাধারণ মুসলমানদের কবর দেওয়ার জন্য ১৬ শতক ভূমি দান করেন রায়ের পাড়া গ্রামের জমিদার বিনোদ বিহারী বিশ্বাস। জেএল নং ১০১, দাগ নং ৮ ও খতিয়ান নং ২৫৩। এভাবেই অত্র এলাকার মানুষ ঐ কবরস্থানে লাশ দাফন করে আসছেন। ইদানিং মীরের হাটি এলাকার ঐ মাতব্বররা লাশ দাফনে বাধা প্রদান করছেন। এতে করে ঐ মাতব্বরদের সাথে এলাকাবাসীর দাঙ্গা-হাঙ্গামা ও মামলা মোকাদ্দমা পর্যন্ত হয়েছে। এ বিষয়টি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ ইকবাল হোসেন খান ও ৪নং ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ রেখাছ মিয়ার মাধ্যমে ৩/৪/২০১৯ সালে অঙ্গিকারনামা করে মীমাংসা করা হয়। এ অঙ্গিকার নামায় উভয় পক্ষ কেউ কাউকে লাশ দাফনে কোন প্রকার বাধা প্রদান করবে না মর্মে উল্লেখ করে অঙ্গিকার নামা লেখা হয়। এরপরও লাশ দাফনে বাধা প্রদান করায় এলাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত

৯৯৯ কল দেওয়ার পর বানিয়াচংয়ে পুলিশের সহযোগিতায় লাশ দাফন

আপডেট সময় ০৩:৩৪:৫০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩ অক্টোবর ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার : বানিয়াচংয়ে ৯৯৯ কল দিয়ে পুলিশের সহযোগিতায় লাশ দাফন করেছেন এলাকাবাসী। এ নিয়ে এলাকায় প্রাণ চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শুক্রবার বাদ জুময়া উপজেলা সদরের ৪নং দক্ষিণ-পশ্চিম ইউনিয়ন এর অন্তর্গত পাঠানটুলা গ্রামে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, পাঠানটুলা গ্রামের মৃত আব্দুল করিম মিয়ার ছেলে আব্দুর রউফ মিয়া (৪৫) অসুস্থজনিত কারণে গতকাল শুক্রবার সকাল ১১টায় নিজ বাড়িতে ইন্তেকাল করেন। ইন্নালিল্লাহি …. রাজিউন। তাঁর স্বজনরা পঞ্চায়েতী কবরস্থানে কবর খনন করতে গেলে বাধা প্রদান করেন মীরের হাটি এলাকার কতিপয় গ্রাম্য মাতব্বর । এতে লাশ নিয়ে চরম বেকায়দায় পড়েন মৃতের স্বজনরা। নিরুপায় হয়ে ৯৯৯ কল দিলে ১০/১৫ মিনিটের ভিতরে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন বানিয়াচং থানার এস আই শিমুল রায় এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ। এসময় পুলিশের উপস্থিতিতে কবর খনন, জানাযা ও দাফন করা হয়। এঘটনা জানাজানি হলে কতিপয় গ্রাম্য মাতব্বরদের ধিক্কার দেন উপস্থিত লোকজন। এ ব্যাপারে মৃতের স্বজন মোঃ আব্দাল মিয়া তরঙ্গ টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, পাঠানটুলা কবরস্থানে কবর খনন করতে গেলে এলাকার জনৈক ব্যক্তি বাধা প্রদান করেন। এমনকি এখান থেকে না সরলে আমাকে খুন করারও হুমকি প্রদান করা হয়। এতে করে ৯৯৯ ফোন দিলে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বানিয়াচং থানার পুলিশ গিয়ে লাশ দাফনে সহযোগিতা করেন। এতে করে পুলিশের প্রতি আমরা এলাকাবাসী চির কৃতজ্ঞ। পাশাপাশি আর যাতে করে আর কারও সাথে ঐ কতিপয় গ্রাম্য মাতব্বররা এহেন আচরণ না করে তাতে আইন শৃংখলা বাহিনীসহ দেশবাসীর সহযোগিতা কামনা করি। বানিয়াচং থানার এস আই শিমুল রায় জানান, ৯৯৯ কল পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ দাফনে সহযোগিতা করি।
উল্লেখ্য, ১৯৫০ সালে পাঠানটুলা গ্রামে সাধারণ মুসলমানদের কবর দেওয়ার জন্য ১৬ শতক ভূমি দান করেন রায়ের পাড়া গ্রামের জমিদার বিনোদ বিহারী বিশ্বাস। জেএল নং ১০১, দাগ নং ৮ ও খতিয়ান নং ২৫৩। এভাবেই অত্র এলাকার মানুষ ঐ কবরস্থানে লাশ দাফন করে আসছেন। ইদানিং মীরের হাটি এলাকার ঐ মাতব্বররা লাশ দাফনে বাধা প্রদান করছেন। এতে করে ঐ মাতব্বরদের সাথে এলাকাবাসীর দাঙ্গা-হাঙ্গামা ও মামলা মোকাদ্দমা পর্যন্ত হয়েছে। এ বিষয়টি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ ইকবাল হোসেন খান ও ৪নং ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ রেখাছ মিয়ার মাধ্যমে ৩/৪/২০১৯ সালে অঙ্গিকারনামা করে মীমাংসা করা হয়। এ অঙ্গিকার নামায় উভয় পক্ষ কেউ কাউকে লাশ দাফনে কোন প্রকার বাধা প্রদান করবে না মর্মে উল্লেখ করে অঙ্গিকার নামা লেখা হয়। এরপরও লাশ দাফনে বাধা প্রদান করায় এলাকায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।