ঢাকা ১০:১২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত Logo গ্যানিংগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে নানা আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উদযাপন Logo মহান বিজয় দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে বানিয়াচং মডেল প্রেসক্লাব Logo দেশবাসীকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ‘বানিয়াচং ইসলামি নাগরিক ফোরাম’ নেতৃবৃন্দ Logo নূরানী শিক্ষা বোর্ডে মেধা তালিকায় ২য় হয়েছে গ্যানিংগঞ্জ বাজার নূরানী মাদ্রাসার ছাত্রী মুনতাহা আক্তার Logo বানিয়াচংয়ে ১২কেজি গাঁজাসহ কুখ্যাত ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার Logo বানিয়াচং শাহজালাল কে.জি স্কুল ২০২৩ বৃত্তি পরীক্ষায় ঈর্ষণীয় সাফল্য Logo চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন ডা. ইলিয়াছ একাডেমির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত Logo ৪০তম তাফসিরুল কোরআন মহা সম্মেলন সফল করায় আলহাজ্ব রেজাউল মোহিত খানের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ Logo ইফার সাবেক ফিল্ড অফিসার আব্দুল ওয়াদুদের মৃত্যুতে জেলা মউশিক কল্যাণ পরিষদ নেতৃবৃন্দের শোক

হিটলারের থার্ড রাইখ

  • তরঙ্গ ২৪ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৩:১৯:৫৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ জুন ২০২০
  • ৮৭ বার পড়া হয়েছে

এম এ মজিদ :
এডলফ হিটলার খুব গর্ব করে বলতেন “ আমার থার্ড রাইখ হাজার বছর বাঁচবে”। থার্ড রাইখ হাজার বছর বাঁচেনি। বেঁচেছিল মাত্র ১৪ বছর। হিটলার এখনও বিশ্ববাসীর কাছে এক পরিচিত নাম। হিটলারকে গালি হিসাবেও ব্যবহার করা হয়। রাইখ শব্দটি জার্মানী। রাইখ অর্থ রাজ্য। অটোর রোম ৯৬২ সালে প্রথম রাইখ প্রতিষ্ঠা করেন। ১৮৭১ সালে অটো ভন বিসমার্ক প্রতিষ্ঠা করেন দ্বিতীয় রাইখ এবং ১৯২০ সালে একটি বইয়ের শিরোনাম ছিল থার্ড রাইখ বা তৃতীয় সাম্রাজ্য। ১৯৩৩ সাল থেকে ১৯৪৫ সাল পর্যন্ত হিটলারের সরকারের নামও ছিল থার্ড রাইখ বা তৃতীয় সাম্রাজ্য। গরীব পরিবারের সন্তান হিটলারের বাড়ি ছিল অষ্ট্রিয়ায়। জার্মানে তারা বসতি স্থাপন করেন। অন্ত তিনবার সেনাবাহিনীতে যোগদানের চেষ্টা করেও তিনি ব্যর্থ হন। অবশেষে সেনা বাহিনীতে যোগদান করেন এবং শুরুতে তিনি ছিলেন একজন অখ্যাত ল্যান্স কর্পোরাল। ১ম ও ২য় বিশ্বযুদ্ধে তিনি অসামান্য বীরত্বের পরিচয় দেন। অবশেষে মাত্র ১৪ বছরের সংগ্রাম আর ঘাত প্রতিঘাতের পর তিনি জার্মানের সর্বোচ্চ নেতা চ্যান্সেলর হন। হিটলারের নাৎসী বাহিনীর নির্যাতনের কথা এখনও স্মরণ হলে মানুষ আৎকে উঠে। জীবন যুদ্ধে এক পরাজিত বীরের নাম হিটলার। শুধু মিথ্যা বলানোর জন্যও মন্ত্রীর চাকুরী দেয়া হয়। গোয়েভলস তাদেরই একজন। দুঃখের বিষয় হল- মিথ্যা বলার মন্ত্রী গোয়েভলস ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী। মাইকেল হার্টস তার বিখ্যাত “হান্ড্রেডস” বইতে হিটলারের তালিকা দেন ৫২ তে। ১৯৩৮ সালে টাইম ম্যাগাজিন হিটলারকে বছরের শ্রেষ্ঠতম ব্যক্তি হিসাবে মনোনীত করে। ১৯২৫ সালে প্রকাশিত হিটলারের আত্মজীবনী মূলক বই “মেইন ক্যাম্ফ” বা আমার সংগ্রাম বই ছাড়া অন্য কোনো বই মানুষকে পড়তে দেয়া হতো না। এতো কিছুর পরও হিটলারের গর্বের থার্ড রাইখ বেঁচেছিল মাত্র ১৪ বছর।

লেখকঃ- সংবাদকর্মী ও আইনজীবী

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত

হিটলারের থার্ড রাইখ

আপডেট সময় ০৩:১৯:৫৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২১ জুন ২০২০

এম এ মজিদ :
এডলফ হিটলার খুব গর্ব করে বলতেন “ আমার থার্ড রাইখ হাজার বছর বাঁচবে”। থার্ড রাইখ হাজার বছর বাঁচেনি। বেঁচেছিল মাত্র ১৪ বছর। হিটলার এখনও বিশ্ববাসীর কাছে এক পরিচিত নাম। হিটলারকে গালি হিসাবেও ব্যবহার করা হয়। রাইখ শব্দটি জার্মানী। রাইখ অর্থ রাজ্য। অটোর রোম ৯৬২ সালে প্রথম রাইখ প্রতিষ্ঠা করেন। ১৮৭১ সালে অটো ভন বিসমার্ক প্রতিষ্ঠা করেন দ্বিতীয় রাইখ এবং ১৯২০ সালে একটি বইয়ের শিরোনাম ছিল থার্ড রাইখ বা তৃতীয় সাম্রাজ্য। ১৯৩৩ সাল থেকে ১৯৪৫ সাল পর্যন্ত হিটলারের সরকারের নামও ছিল থার্ড রাইখ বা তৃতীয় সাম্রাজ্য। গরীব পরিবারের সন্তান হিটলারের বাড়ি ছিল অষ্ট্রিয়ায়। জার্মানে তারা বসতি স্থাপন করেন। অন্ত তিনবার সেনাবাহিনীতে যোগদানের চেষ্টা করেও তিনি ব্যর্থ হন। অবশেষে সেনা বাহিনীতে যোগদান করেন এবং শুরুতে তিনি ছিলেন একজন অখ্যাত ল্যান্স কর্পোরাল। ১ম ও ২য় বিশ্বযুদ্ধে তিনি অসামান্য বীরত্বের পরিচয় দেন। অবশেষে মাত্র ১৪ বছরের সংগ্রাম আর ঘাত প্রতিঘাতের পর তিনি জার্মানের সর্বোচ্চ নেতা চ্যান্সেলর হন। হিটলারের নাৎসী বাহিনীর নির্যাতনের কথা এখনও স্মরণ হলে মানুষ আৎকে উঠে। জীবন যুদ্ধে এক পরাজিত বীরের নাম হিটলার। শুধু মিথ্যা বলানোর জন্যও মন্ত্রীর চাকুরী দেয়া হয়। গোয়েভলস তাদেরই একজন। দুঃখের বিষয় হল- মিথ্যা বলার মন্ত্রী গোয়েভলস ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী। মাইকেল হার্টস তার বিখ্যাত “হান্ড্রেডস” বইতে হিটলারের তালিকা দেন ৫২ তে। ১৯৩৮ সালে টাইম ম্যাগাজিন হিটলারকে বছরের শ্রেষ্ঠতম ব্যক্তি হিসাবে মনোনীত করে। ১৯২৫ সালে প্রকাশিত হিটলারের আত্মজীবনী মূলক বই “মেইন ক্যাম্ফ” বা আমার সংগ্রাম বই ছাড়া অন্য কোনো বই মানুষকে পড়তে দেয়া হতো না। এতো কিছুর পরও হিটলারের গর্বের থার্ড রাইখ বেঁচেছিল মাত্র ১৪ বছর।

লেখকঃ- সংবাদকর্মী ও আইনজীবী