ঢাকা ১১:৩৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত Logo গ্যানিংগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে নানা আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উদযাপন Logo মহান বিজয় দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে বানিয়াচং মডেল প্রেসক্লাব Logo দেশবাসীকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ‘বানিয়াচং ইসলামি নাগরিক ফোরাম’ নেতৃবৃন্দ Logo নূরানী শিক্ষা বোর্ডে মেধা তালিকায় ২য় হয়েছে গ্যানিংগঞ্জ বাজার নূরানী মাদ্রাসার ছাত্রী মুনতাহা আক্তার Logo বানিয়াচংয়ে ১২কেজি গাঁজাসহ কুখ্যাত ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার Logo বানিয়াচং শাহজালাল কে.জি স্কুল ২০২৩ বৃত্তি পরীক্ষায় ঈর্ষণীয় সাফল্য Logo চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন ডা. ইলিয়াছ একাডেমির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত Logo ৪০তম তাফসিরুল কোরআন মহা সম্মেলন সফল করায় আলহাজ্ব রেজাউল মোহিত খানের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ Logo ইফার সাবেক ফিল্ড অফিসার আব্দুল ওয়াদুদের মৃত্যুতে জেলা মউশিক কল্যাণ পরিষদ নেতৃবৃন্দের শোক

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ইংরেজি কবিতার বই

  • তরঙ্গ ২৪ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৮:০১:২১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৪ মে ২০২০
  • ২০৯ বার পড়া হয়েছে

রবীন্দ্রনাথের ইংরেজি কবিতা সম্পর্কে জানার আগ্রহ তৈরি হয়েছিল ইয়েটস পড়তে গিয়ে। ইয়েটস যে তাঁর গীতাঞ্জলির ভূমিকা লিখে দিয়েছিলেন, এবং রবীন্দ্রনাথ তাঁর ইংরেজ বন্ধু রদেনস্টেইনকে উৎসর্গ করেছিলেন সেই বইটা। অনেকের মতো আমিও এ মতে বিশ্বাস করি যে, রদেনস্টেইন ও ইয়েটসের সংযুক্তি ট্যাগোরকে নোবেল পেতে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে কিছুটা সহযোগিতা করেছিল।

রবীন্দ্রনাথ নোবেলজয়ী ‘গীতাঞ্জলি’ অনুবাদ করেছিলেন সেটা আমরা কমবেশি সবাই জানলেও তিনি যে আরো কয়েকটা কাব্যগ্রন্থ ইংরেজিতে অনুবাদ করেছিলেন এবং একটা কাব্যগ্রন্থ ইংরেজিতে লিখেওছিলেন সে কথা পাঠকমহলে ঠিক সেভাবে পৌঁছেছে বলে মনে হয় না। অনুবাদক হিসেবে রবীন্দ্রনাথ কেমন সেই আলাপ অন্য একদিন করা যাবে। আজকের আলাপ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মোট ইংরেজি গ্রন্থসংখ্যা নিয়ে।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত ইংরেজি বইয়ের সংখ্যা মোট পনের, অধিকাংশই কবির অনুবাদ।

বইগুলোর নাম হলো—‘দ্য চাইল্ড’, ‘গীতাঞ্জলি’, ‘দি গার্ডেনার’, ‘দ্য ক্রিসেন্ট মুন’, ‘ফ্রুট-গ্যাদারিং’, ‘লাভার্স গিফট এন্ড ক্রসিং’, ‘দ্য ফিউজিটিভ’, ‘পোয়েমস’, ‘কালেক্টেড পোয়েমস এন্ড প্লেইজ’, ‘স্ট্রে বার্ডস’, ‘দ্য চাইল্ড’, ‘ফায়ারফ্লাইজ’, ‘দ্য ফিউজটিভ’, ‘ওয়ান হান্ড্রেড পোয়েমস অভ কবির’ এবং ‘লেখন’।

দ্য চাইল্ড [The Child]
এটি রবীন্দ্রনাথের একমাত্র মৌলিক ইংরেজি গ্রন্থ। প্রকাশিত হয় ১৯৩১ সালে। এলেন এন্ড আনউইন প্রকাশনী থেকে। কবিতাগুলো কবি পরে বাংলায় রূপান্তরিত করেন ‘শিশুতীর্থ’ নামে। এই ‘শিশুতীর্থ’ তাঁর ‘পুনশ্চ’ কাব্যগ্রন্থে স্থান পায়।

গীতাঞ্জলি [Gitanjali]
ইন্ডিয়া সোসাইটি লন্ডন থেকে গীতাঞ্জলির প্রথম ইংরেজি সংস্করণ বের হয় ১৯১২ সালে। এটি রদেনস্টেইনকে উৎসর্গ করেন কবিগুরু। বিখ্যাত আইরিশ কবি উইলিয়াম বাটলার ইয়েটস এই গ্রন্থের ভূমিকা লেখেন।
পরবর্তীতে ম্যাকমিলান লন্ডন বইটি প্রকাশ করে ১৯১৩ সালে।

দি গার্ডেনার [The Gardener]
বইটি বেরোয় ১৯১৩ সালের অক্টোবর মাসে। প্রকাশক ম্যাকমিলান লন্ডন। এই বইয়ে মোট ৮৫টি কবিতা স্থান পায়।

দ্য ক্রিসেন্ট মুন [The Crescent Moon]
দ্য ক্রিসেন্ট মুন Sturge Moor-কে উৎসর্গকৃত। প্রকাশিত হয় ১৯১৩ সালের নভেম্বরে। মোট ৪০টি কবিতা আছে।

ফ্রুট-গ্যাদারিং [Fruit Gathering]
ফ্রুট গ্যাদারিং-এ কবিতার সংখ্যা ৮৫টি। ম্যাকমিলান লন্ডন বইটি প্রকাশ করে ১৯১৬ সালে।

স্ট্রে বার্ডস [Stray Birds]
এটি প্রকাশিত হয় ১৯১৬ সালে। এ বইটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর উৎসর্গ করেছিলেন জাপানের T. Hara-কে। কবিতার সংখ্যা ৪৩।

লাভার্স গিফট এন্ড ক্রসিং [Lover’s Gift and Crossing]
প্রকাশিত হয় ১৯১৮ সালে। এবারও প্রকাশক ম্যাকমিলান লন্ডন। এই বইয়ে নিজের কবিতা ছাড়াও সত্যেন্দ্রনাথ, দ্বিজেন্দ্রলাল রায় ও দেবেন্দ্রনাথ রায়ের কবিতার অনুবাদ করেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

দ্য ফিউজিটিভ [The Fugitive] (বোলপুর সংস্করণ)
অনুমান করা হয় ব্যক্তিগত বলয়ে বিলি করার জন্য এই বইটি প্রকাশিত হয়। মোট কবিতা ছিল ৭৪টি।

দ্য ফিউজিটিভ [The Fugitive] (নিউইয়র্ক সংস্করণ)
ম্যাকমিলান নিউইয়র্ক এই বইটি প্রকাশ করে ১৯২১ সালে। বইটি তিনভাগে বিভক্ত—দ্য ফিউজটিভ ওয়ান, টু ও থ্রি।

ফায়ারফ্লাইজ [Fireflies]
১৩৮টি কবিতার অনুবাদ নিয়ে এই বইটি প্রকাশিত হয় ১৯২৮ সালে।

কালেক্টেড পোয়েমস [Collected Poems and Plays]
১৯৩৬ সালে বইটি প্রকাশিত হয় ম্যাকমিলান লন্ডন থেকে। এই গ্রন্থে কবিতার সংখ্যা মাত্র নয়টি।

পোয়েমস [Poems]
১৯৪২ সালে বিশ্বভারতী থেকে প্রকাশিত এই বইটি সম্পাদনা করেন কৃষ্ণ কৃপালনি, অমিয় চক্রবর্তী, নির্মল চট্টোপাধ্যায় ও পুলিন বিহারি সেন।

ওয়ান হান্ড্রেড পোয়েমস অভ কবির [One Hundred Poems of Kabir]
বইটি প্রথমবার প্রকাশ করে ইন্ডিয়া সোসাইটি, ১৯১৪ সালে। পরবর্তীতে ম্যাকমিলান নিউইয়র্ক শিরোনাম দেয় ‘সংগস অভ কবির’। প্রকাশিত হয় ১৯১৭ সালে।

লেখন [Lekhan]
অভিনব এই কবিতার বইটি প্রকাশিত হয় ১৯২৬ সালে। ছোটবড় মোট ৪২০টি কবিতা স্থান পায় বইটিতে। ইংরেজি কবিতার সংখ্যা ২২২টি ও বাংলা কবিতার সংখ্যা ১৯৮টি।
হাতের লেখায় ছাপা এই বইটি প্রকাশিত হয় জার্মানি থেকে।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ইংরেজি কবিতার বই

আপডেট সময় ০৮:০১:২১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৪ মে ২০২০

রবীন্দ্রনাথের ইংরেজি কবিতা সম্পর্কে জানার আগ্রহ তৈরি হয়েছিল ইয়েটস পড়তে গিয়ে। ইয়েটস যে তাঁর গীতাঞ্জলির ভূমিকা লিখে দিয়েছিলেন, এবং রবীন্দ্রনাথ তাঁর ইংরেজ বন্ধু রদেনস্টেইনকে উৎসর্গ করেছিলেন সেই বইটা। অনেকের মতো আমিও এ মতে বিশ্বাস করি যে, রদেনস্টেইন ও ইয়েটসের সংযুক্তি ট্যাগোরকে নোবেল পেতে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে কিছুটা সহযোগিতা করেছিল।

রবীন্দ্রনাথ নোবেলজয়ী ‘গীতাঞ্জলি’ অনুবাদ করেছিলেন সেটা আমরা কমবেশি সবাই জানলেও তিনি যে আরো কয়েকটা কাব্যগ্রন্থ ইংরেজিতে অনুবাদ করেছিলেন এবং একটা কাব্যগ্রন্থ ইংরেজিতে লিখেওছিলেন সে কথা পাঠকমহলে ঠিক সেভাবে পৌঁছেছে বলে মনে হয় না। অনুবাদক হিসেবে রবীন্দ্রনাথ কেমন সেই আলাপ অন্য একদিন করা যাবে। আজকের আলাপ রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মোট ইংরেজি গ্রন্থসংখ্যা নিয়ে।

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত ইংরেজি বইয়ের সংখ্যা মোট পনের, অধিকাংশই কবির অনুবাদ।

বইগুলোর নাম হলো—‘দ্য চাইল্ড’, ‘গীতাঞ্জলি’, ‘দি গার্ডেনার’, ‘দ্য ক্রিসেন্ট মুন’, ‘ফ্রুট-গ্যাদারিং’, ‘লাভার্স গিফট এন্ড ক্রসিং’, ‘দ্য ফিউজিটিভ’, ‘পোয়েমস’, ‘কালেক্টেড পোয়েমস এন্ড প্লেইজ’, ‘স্ট্রে বার্ডস’, ‘দ্য চাইল্ড’, ‘ফায়ারফ্লাইজ’, ‘দ্য ফিউজটিভ’, ‘ওয়ান হান্ড্রেড পোয়েমস অভ কবির’ এবং ‘লেখন’।

দ্য চাইল্ড [The Child]
এটি রবীন্দ্রনাথের একমাত্র মৌলিক ইংরেজি গ্রন্থ। প্রকাশিত হয় ১৯৩১ সালে। এলেন এন্ড আনউইন প্রকাশনী থেকে। কবিতাগুলো কবি পরে বাংলায় রূপান্তরিত করেন ‘শিশুতীর্থ’ নামে। এই ‘শিশুতীর্থ’ তাঁর ‘পুনশ্চ’ কাব্যগ্রন্থে স্থান পায়।

গীতাঞ্জলি [Gitanjali]
ইন্ডিয়া সোসাইটি লন্ডন থেকে গীতাঞ্জলির প্রথম ইংরেজি সংস্করণ বের হয় ১৯১২ সালে। এটি রদেনস্টেইনকে উৎসর্গ করেন কবিগুরু। বিখ্যাত আইরিশ কবি উইলিয়াম বাটলার ইয়েটস এই গ্রন্থের ভূমিকা লেখেন।
পরবর্তীতে ম্যাকমিলান লন্ডন বইটি প্রকাশ করে ১৯১৩ সালে।

দি গার্ডেনার [The Gardener]
বইটি বেরোয় ১৯১৩ সালের অক্টোবর মাসে। প্রকাশক ম্যাকমিলান লন্ডন। এই বইয়ে মোট ৮৫টি কবিতা স্থান পায়।

দ্য ক্রিসেন্ট মুন [The Crescent Moon]
দ্য ক্রিসেন্ট মুন Sturge Moor-কে উৎসর্গকৃত। প্রকাশিত হয় ১৯১৩ সালের নভেম্বরে। মোট ৪০টি কবিতা আছে।

ফ্রুট-গ্যাদারিং [Fruit Gathering]
ফ্রুট গ্যাদারিং-এ কবিতার সংখ্যা ৮৫টি। ম্যাকমিলান লন্ডন বইটি প্রকাশ করে ১৯১৬ সালে।

স্ট্রে বার্ডস [Stray Birds]
এটি প্রকাশিত হয় ১৯১৬ সালে। এ বইটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর উৎসর্গ করেছিলেন জাপানের T. Hara-কে। কবিতার সংখ্যা ৪৩।

লাভার্স গিফট এন্ড ক্রসিং [Lover’s Gift and Crossing]
প্রকাশিত হয় ১৯১৮ সালে। এবারও প্রকাশক ম্যাকমিলান লন্ডন। এই বইয়ে নিজের কবিতা ছাড়াও সত্যেন্দ্রনাথ, দ্বিজেন্দ্রলাল রায় ও দেবেন্দ্রনাথ রায়ের কবিতার অনুবাদ করেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।

দ্য ফিউজিটিভ [The Fugitive] (বোলপুর সংস্করণ)
অনুমান করা হয় ব্যক্তিগত বলয়ে বিলি করার জন্য এই বইটি প্রকাশিত হয়। মোট কবিতা ছিল ৭৪টি।

দ্য ফিউজিটিভ [The Fugitive] (নিউইয়র্ক সংস্করণ)
ম্যাকমিলান নিউইয়র্ক এই বইটি প্রকাশ করে ১৯২১ সালে। বইটি তিনভাগে বিভক্ত—দ্য ফিউজটিভ ওয়ান, টু ও থ্রি।

ফায়ারফ্লাইজ [Fireflies]
১৩৮টি কবিতার অনুবাদ নিয়ে এই বইটি প্রকাশিত হয় ১৯২৮ সালে।

কালেক্টেড পোয়েমস [Collected Poems and Plays]
১৯৩৬ সালে বইটি প্রকাশিত হয় ম্যাকমিলান লন্ডন থেকে। এই গ্রন্থে কবিতার সংখ্যা মাত্র নয়টি।

পোয়েমস [Poems]
১৯৪২ সালে বিশ্বভারতী থেকে প্রকাশিত এই বইটি সম্পাদনা করেন কৃষ্ণ কৃপালনি, অমিয় চক্রবর্তী, নির্মল চট্টোপাধ্যায় ও পুলিন বিহারি সেন।

ওয়ান হান্ড্রেড পোয়েমস অভ কবির [One Hundred Poems of Kabir]
বইটি প্রথমবার প্রকাশ করে ইন্ডিয়া সোসাইটি, ১৯১৪ সালে। পরবর্তীতে ম্যাকমিলান নিউইয়র্ক শিরোনাম দেয় ‘সংগস অভ কবির’। প্রকাশিত হয় ১৯১৭ সালে।

লেখন [Lekhan]
অভিনব এই কবিতার বইটি প্রকাশিত হয় ১৯২৬ সালে। ছোটবড় মোট ৪২০টি কবিতা স্থান পায় বইটিতে। ইংরেজি কবিতার সংখ্যা ২২২টি ও বাংলা কবিতার সংখ্যা ১৯৮টি।
হাতের লেখায় ছাপা এই বইটি প্রকাশিত হয় জার্মানি থেকে।