ঢাকা ১১:৪২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত Logo গ্যানিংগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে নানা আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উদযাপন Logo মহান বিজয় দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে বানিয়াচং মডেল প্রেসক্লাব Logo দেশবাসীকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ‘বানিয়াচং ইসলামি নাগরিক ফোরাম’ নেতৃবৃন্দ Logo নূরানী শিক্ষা বোর্ডে মেধা তালিকায় ২য় হয়েছে গ্যানিংগঞ্জ বাজার নূরানী মাদ্রাসার ছাত্রী মুনতাহা আক্তার Logo বানিয়াচংয়ে ১২কেজি গাঁজাসহ কুখ্যাত ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার Logo বানিয়াচং শাহজালাল কে.জি স্কুল ২০২৩ বৃত্তি পরীক্ষায় ঈর্ষণীয় সাফল্য Logo চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন ডা. ইলিয়াছ একাডেমির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত Logo ৪০তম তাফসিরুল কোরআন মহা সম্মেলন সফল করায় আলহাজ্ব রেজাউল মোহিত খানের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ Logo ইফার সাবেক ফিল্ড অফিসার আব্দুল ওয়াদুদের মৃত্যুতে জেলা মউশিক কল্যাণ পরিষদ নেতৃবৃন্দের শোক

বানিয়াচং বড় বাজারে আগুনে পুড়ে ১৪টি দোকান ছাঁই, ক্ষতির পরিমাণ ১ কোটি টাকা

  • তরঙ্গ ২৪ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৬:৪১:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০
  • ২০৩ বার পড়া হয়েছে

আবদাল মিয়া/আক্তার হোসেন আলহাদী/ বদরুল লস্কর : বানিয়াচংয়ে ১৪ টি দোকান পুড়ে ছাঁই হয়ে গেছে। এতে প্রায় ১কোটি টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। শনিবার (২৮ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১২ টায় উপজেলা সদরের বড়বাজারে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে বানিয়াচং ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এছাড়াও হবিগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ২ টি ইউনিট এবং পার্শবর্তী উপজেলা নবীগঞ্জ থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করে।

 

ছবি- ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ রানা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ক্ষতিগ্রস্থ কোনো একটি দোকান থেকে প্রথমে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। এতে মুহূর্তের মধ্যেই আগুনের লেলিহান শিখা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে করে আগুনে খালেদ মিয়ার ইবনেসিনা ফার্মেসি, আবুল হোসেনের ফার্মেসি, সাংবাদিক আলমগীর মিয়ার মুদির দোকান, সিয়াম স্টোর, ৪ টি পানের দোকান এবং ৭টি মুদির দোকান পুড়ে ছাঁই হয়ে যায়। আগুন ছড়িয়ে পড়ে। উপজেলা প্রশাসন জানিয়েছে আগুনে প্রায় ১ কোটি টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে।

 

ছবি- নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগুনে পুড়ে যাওয়ার দৃশ্য দেখে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন ব্যবসায়ী ও সাংবাদিক শেখ মোঃ আলমগীর।

সিয়াম স্টোরের স্বত্বাধিকারি আলমগীর মিয়া জানান, আমার পাইকারি দোকান এবং একটি গুদাম মিলে প্রায় ২৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ইবনেসিনা ফার্মেসির স্বত্বাধিকারি খালেদ মিয়ার ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৪০ লক্ষ টাকা বলে জানিয়েছেন তিনি। পাইকারি দোকান আবুল কালাম স্টোরের এর মালিক আবুল কালাম জানান, আমার পাইকারি দোকানে আনুমানিক ৩০ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাঁই হয়েছে। বানিয়াচং ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট লিডার ফয়েজ আহমেদ জানান, বৈদ্যতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক বেশি হবে বলে ধারনা করেন তিনি।

 

ছবি- নিজেদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আগুন লেগে ছাঁই হয়ে যাওয়ায় বিমর্ষ অবস্থায় মালিকের ছেলে।

এদিকে খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ রানা। আগুন নিয়ন্ত্রণে সার্বিক সহযোগিতা এবং দিকনির্দেশনা দেন তিনি। এছাড়াও আগুন নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করেন বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো : এমরান হোসেনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত

বানিয়াচং বড় বাজারে আগুনে পুড়ে ১৪টি দোকান ছাঁই, ক্ষতির পরিমাণ ১ কোটি টাকা

আপডেট সময় ০৬:৪১:০২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০

আবদাল মিয়া/আক্তার হোসেন আলহাদী/ বদরুল লস্কর : বানিয়াচংয়ে ১৪ টি দোকান পুড়ে ছাঁই হয়ে গেছে। এতে প্রায় ১কোটি টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে। শনিবার (২৮ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১২ টায় উপজেলা সদরের বড়বাজারে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে বানিয়াচং ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এছাড়াও হবিগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ২ টি ইউনিট এবং পার্শবর্তী উপজেলা নবীগঞ্জ থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করে।

 

ছবি- ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ রানা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ক্ষতিগ্রস্থ কোনো একটি দোকান থেকে প্রথমে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। এতে মুহূর্তের মধ্যেই আগুনের লেলিহান শিখা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। এতে করে আগুনে খালেদ মিয়ার ইবনেসিনা ফার্মেসি, আবুল হোসেনের ফার্মেসি, সাংবাদিক আলমগীর মিয়ার মুদির দোকান, সিয়াম স্টোর, ৪ টি পানের দোকান এবং ৭টি মুদির দোকান পুড়ে ছাঁই হয়ে যায়। আগুন ছড়িয়ে পড়ে। উপজেলা প্রশাসন জানিয়েছে আগুনে প্রায় ১ কোটি টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয়েছে।

 

ছবি- নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আগুনে পুড়ে যাওয়ার দৃশ্য দেখে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন ব্যবসায়ী ও সাংবাদিক শেখ মোঃ আলমগীর।

সিয়াম স্টোরের স্বত্বাধিকারি আলমগীর মিয়া জানান, আমার পাইকারি দোকান এবং একটি গুদাম মিলে প্রায় ২৫ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। ইবনেসিনা ফার্মেসির স্বত্বাধিকারি খালেদ মিয়ার ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৪০ লক্ষ টাকা বলে জানিয়েছেন তিনি। পাইকারি দোকান আবুল কালাম স্টোরের এর মালিক আবুল কালাম জানান, আমার পাইকারি দোকানে আনুমানিক ৩০ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাঁই হয়েছে। বানিয়াচং ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট লিডার ফয়েজ আহমেদ জানান, বৈদ্যতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রায় ২ ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। তবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেক বেশি হবে বলে ধারনা করেন তিনি।

 

ছবি- নিজেদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান আগুন লেগে ছাঁই হয়ে যাওয়ায় বিমর্ষ অবস্থায় মালিকের ছেলে।

এদিকে খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে ছুটে যান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুদ রানা। আগুন নিয়ন্ত্রণে সার্বিক সহযোগিতা এবং দিকনির্দেশনা দেন তিনি। এছাড়াও আগুন নিয়ন্ত্রণে সহযোগিতা করেন বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো : এমরান হোসেনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ।