ঢাকা ০২:৪৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত Logo গ্যানিংগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে নানা আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উদযাপন Logo মহান বিজয় দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে বানিয়াচং মডেল প্রেসক্লাব Logo দেশবাসীকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ‘বানিয়াচং ইসলামি নাগরিক ফোরাম’ নেতৃবৃন্দ Logo নূরানী শিক্ষা বোর্ডে মেধা তালিকায় ২য় হয়েছে গ্যানিংগঞ্জ বাজার নূরানী মাদ্রাসার ছাত্রী মুনতাহা আক্তার Logo বানিয়াচংয়ে ১২কেজি গাঁজাসহ কুখ্যাত ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার Logo বানিয়াচং শাহজালাল কে.জি স্কুল ২০২৩ বৃত্তি পরীক্ষায় ঈর্ষণীয় সাফল্য Logo চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন ডা. ইলিয়াছ একাডেমির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত Logo ৪০তম তাফসিরুল কোরআন মহা সম্মেলন সফল করায় আলহাজ্ব রেজাউল মোহিত খানের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ Logo ইফার সাবেক ফিল্ড অফিসার আব্দুল ওয়াদুদের মৃত্যুতে জেলা মউশিক কল্যাণ পরিষদ নেতৃবৃন্দের শোক

বানিয়াচংয়ে বড়ইউড়ি গ্রামে হত্যাকান্ডের ঘটনায় অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প মোতায়েন

  • তরঙ্গ ২৪ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ১১:২৬:৩০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১১ জানুয়ারী ২০২১
  • ১৫১ বার পড়া হয়েছে

মখলিছ মিয়া : বানিয়াচংয়ে কলেজ ছাত্র তানভীর হত্যাকান্ডের ঘটনায় অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে বড়ইউড়ি গ্রামে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করেছে বানিয়াচং থানা পুলিশ। এসআই মনিরুল হক মুন্সীসহ একদল পুলিশ অস্থায়ী ক্যাম্পের দায়িত্ব পালন করছেন। গতকাল রবিবার বড়ইউড়ি গ্রামে ঘুরে দেখা গেছে পুলিশ সদস্যরা ওই গ্রামের বিভিন্ন পাড়ায় হত্যা পরবর্তী পরিস্থিতি শান্ত রাখতে এলাকায় এলাকায় টহল দিচ্ছেন। বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ এমরান হোসেনও হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনে এলাকার বিভিন্ন লোকজনের সাথে কথা বলেছেন। গতকাল রাত ১০ টায় এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত তানভীর হত্যাকান্ডের ঘটনায় বানিয়াচং থানায় মামলা দায়ের করা হয়নি বলে জানিয়েছে থানা পুলিশ। উল্লেখ্য, বানিয়াচংয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় তানভীর মিয়া (২০) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। সে বড়ইউড়ি গ্রামের মোন্তাজ মিয়ার পুত্র। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৯ জানুয়ারী সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার ৭নং বড়ইউড়ি ইউনিয়নের বড়ইউড়ি গ্রামের খলিয়া বাড়ীর সামনে। বড়ইউড়ি গ্রামের মোন্তাজ মিয়া ও মোহাম্মদ আলীর গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছে। ২০১৭ সালে মোহাম্মদ আলীর পিতা আমীর আলীকে মোন্তাজ মিয়ার লোকজন হত্যা করে। ওই হত্যা মামলায় নিহত তানভীরের পিতা মোন্তাজ মিয়া আসামী হিসেবে দীর্ঘদিন পলাতক ছিলেন। ৮ জানুয়ারী শুক্রবার মোন্তাজ মিয়ার লোকজন মোহাম্মদ আলীর উপর হামলা চালিয়ে আহত করে। এর জের ধরে গত ৯জানুয়ারী শনিবার সাড়ে ১২টার দিকে মোন্তাজের ভাতিজা ফরহাদ এর উপর মোহাম্মদ আলীর লোকজন হামলা চালায়। এরই মধ্যে পলাতক থাকা মোন্তাজ ও তার লোকজন ৯ জানুয়ারী গ্রামে প্রবেশ করায় দু’পক্ষের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এক পর্যায়ে সন্ধ্যা ৭টার দিকে মোন্তাজ মিয়ার বাড়ীর সামনে মোহাম্মদ আলীর লোকজন মোন্তাজ মিয়ার ছেলে তানভীরকে আক্রমন করে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় তানভীর।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত

বানিয়াচংয়ে বড়ইউড়ি গ্রামে হত্যাকান্ডের ঘটনায় অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প মোতায়েন

আপডেট সময় ১১:২৬:৩০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১১ জানুয়ারী ২০২১

মখলিছ মিয়া : বানিয়াচংয়ে কলেজ ছাত্র তানভীর হত্যাকান্ডের ঘটনায় অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে বড়ইউড়ি গ্রামে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করেছে বানিয়াচং থানা পুলিশ। এসআই মনিরুল হক মুন্সীসহ একদল পুলিশ অস্থায়ী ক্যাম্পের দায়িত্ব পালন করছেন। গতকাল রবিবার বড়ইউড়ি গ্রামে ঘুরে দেখা গেছে পুলিশ সদস্যরা ওই গ্রামের বিভিন্ন পাড়ায় হত্যা পরবর্তী পরিস্থিতি শান্ত রাখতে এলাকায় এলাকায় টহল দিচ্ছেন। বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ এমরান হোসেনও হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনে এলাকার বিভিন্ন লোকজনের সাথে কথা বলেছেন। গতকাল রাত ১০ টায় এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত তানভীর হত্যাকান্ডের ঘটনায় বানিয়াচং থানায় মামলা দায়ের করা হয়নি বলে জানিয়েছে থানা পুলিশ। উল্লেখ্য, বানিয়াচংয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় তানভীর মিয়া (২০) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। সে বড়ইউড়ি গ্রামের মোন্তাজ মিয়ার পুত্র। ঘটনাটি ঘটেছে গত ৯ জানুয়ারী সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার ৭নং বড়ইউড়ি ইউনিয়নের বড়ইউড়ি গ্রামের খলিয়া বাড়ীর সামনে। বড়ইউড়ি গ্রামের মোন্তাজ মিয়া ও মোহাম্মদ আলীর গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছে। ২০১৭ সালে মোহাম্মদ আলীর পিতা আমীর আলীকে মোন্তাজ মিয়ার লোকজন হত্যা করে। ওই হত্যা মামলায় নিহত তানভীরের পিতা মোন্তাজ মিয়া আসামী হিসেবে দীর্ঘদিন পলাতক ছিলেন। ৮ জানুয়ারী শুক্রবার মোন্তাজ মিয়ার লোকজন মোহাম্মদ আলীর উপর হামলা চালিয়ে আহত করে। এর জের ধরে গত ৯জানুয়ারী শনিবার সাড়ে ১২টার দিকে মোন্তাজের ভাতিজা ফরহাদ এর উপর মোহাম্মদ আলীর লোকজন হামলা চালায়। এরই মধ্যে পলাতক থাকা মোন্তাজ ও তার লোকজন ৯ জানুয়ারী গ্রামে প্রবেশ করায় দু’পক্ষের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এক পর্যায়ে সন্ধ্যা ৭টার দিকে মোন্তাজ মিয়ার বাড়ীর সামনে মোহাম্মদ আলীর লোকজন মোন্তাজ মিয়ার ছেলে তানভীরকে আক্রমন করে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় তানভীর।