ঢাকা ১১:৫৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত Logo গ্যানিংগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে নানা আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উদযাপন Logo মহান বিজয় দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে বানিয়াচং মডেল প্রেসক্লাব Logo দেশবাসীকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ‘বানিয়াচং ইসলামি নাগরিক ফোরাম’ নেতৃবৃন্দ Logo নূরানী শিক্ষা বোর্ডে মেধা তালিকায় ২য় হয়েছে গ্যানিংগঞ্জ বাজার নূরানী মাদ্রাসার ছাত্রী মুনতাহা আক্তার Logo বানিয়াচংয়ে ১২কেজি গাঁজাসহ কুখ্যাত ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার Logo বানিয়াচং শাহজালাল কে.জি স্কুল ২০২৩ বৃত্তি পরীক্ষায় ঈর্ষণীয় সাফল্য Logo চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন ডা. ইলিয়াছ একাডেমির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত Logo ৪০তম তাফসিরুল কোরআন মহা সম্মেলন সফল করায় আলহাজ্ব রেজাউল মোহিত খানের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ Logo ইফার সাবেক ফিল্ড অফিসার আব্দুল ওয়াদুদের মৃত্যুতে জেলা মউশিক কল্যাণ পরিষদ নেতৃবৃন্দের শোক

প্রত্যেক ব্যক্তিকে তার নিজের ও অধীনস্থদের ব্যাপারে জবাবদীহি করতে হবে-মুফতি মোস্তাফিজুর রহমান আজহারী

  • তরঙ্গ ২৪ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৫:২২:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ অক্টোবর ২০২০
  • ১৫৯ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার : হবিগঞ্জ শহরের মোহনপুর দক্ষিন জামে মসজিদে জুমার খুৎবায় মুফতি মোস্তাফিজুর রহমান আজহারী বলেছেন- হাশরের দিন প্রত্যেক ব্যক্তিকে তার নিজের সম্পর্কে এবং তার অধীনস্থদের সম্পর্কে অবশ্যই জবাবদীহি করতে হবে। একজন রাষ্ট্র বা সরকার প্রধানকে তার নিয়ন্ত্রনাধীন রাষ্ট্র ও তার জনগন সম্পর্কে জবাবদীহি করতে হবে। একজন অভিভাবককে তার পরিবারের সদস্যদের সম্পর্কে জবাবদীহি করতে হবে। মা বাবাকে সন্তান সম্পর্কে জবাবদীহি করতে হবে। সন্তান ধর্ষক হলে, সন্তান সন্ত্রাসী হলে এর জবাবদীহি মা- বাবাকেই দিতে হবে। এমসি কলেজ হোস্টেলে গণধর্ষন ঘটনায় যারাই জড়িত তাদের মা -বাবাকে এর দায়-দায়িত্ব নিতেই হবে। বরগুনার রিফাত শরিফ হত্যাকান্ডের ব্যাপারে যদিও দোষীদের ফাঁসি হয়েছে, তবুও মিন্নী কিংবা অন্য অপরাধীদের মা -বাবারা এর দায় এড়াতে পারেন না। সন্তানকে সুশিক্ষা দেয়া মা বাবার কর্তব্য। কর্তব্যে অবহেলার জবাব অবশ্যই দিতে হবে। কিয়ামতের দিন এমনতিই কেউ পার পাবে না। মুফতি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন- লোকমান হাকিম আল্লাহর প্রিয় বান্দা ছিলেন। তাঁর কথা পবিত্র কোরআনে স্থান পেয়েছে। তার নামে পবিত্র কোরআনে সূরা নাজিল হয়েছে। সেই লোকমান হাকিম তাঁর ৭ বছরের ছেলেকে প্রথমেই আল্লাহর একত্ববাদ, নামাজ, ন্যায় কথা প্রচারে কি কি বাধা আসতে পারে তা শিক্ষা দিয়েছেন। আর আমরা আমাদের ৭ বছরের সন্তানদেরকে অর্থহীন হাকডুম বাকডুম শেখাই। ইসলাম থেকে বহু দুরে আমরা বসবাস করছি। যেখানে ইসলাম নেই, আদব কায়দার শিক্ষা নেই, আল্লাহর একত্ববাদের শিক্ষা নেই, নামাজ নেই, সেখানে ধর্ষক, খুনি, ডাকাত তৈরী হবে না তো কি তৈরী হবে! যেখানে সন্তানের প্রতি হক্ব আদায় করা হয় না, সেখানে বৃদ্ধাশ্রম তৈরী হবে না তো কি তৈরী হবে! তিনি বলেন- দাম্ভিকতা পরিহার করতেই হবে। আমাদের সমাজে যারা ক্ষনিকের দাম্ভিকতা দেখায় তারা আল্লাহর কাছে আসলে পিপিলিকার মতোও না। তিনি ইসলামের বাণী প্রচারে নমনীয়তা, ভদ্রতা, সৌজন্যতাবোধ প্রয়োগের আহবান জানিয়ে বলেন- উদ্ভট আওয়াজে ধর্মও প্রচার করা যাবে না। নেচে গেয়ে ওয়াজও করা যাবে না। কারণ এসব ইসলামের সাথে সাংঘর্ষিক।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত

প্রত্যেক ব্যক্তিকে তার নিজের ও অধীনস্থদের ব্যাপারে জবাবদীহি করতে হবে-মুফতি মোস্তাফিজুর রহমান আজহারী

আপডেট সময় ০৫:২২:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২ অক্টোবর ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার : হবিগঞ্জ শহরের মোহনপুর দক্ষিন জামে মসজিদে জুমার খুৎবায় মুফতি মোস্তাফিজুর রহমান আজহারী বলেছেন- হাশরের দিন প্রত্যেক ব্যক্তিকে তার নিজের সম্পর্কে এবং তার অধীনস্থদের সম্পর্কে অবশ্যই জবাবদীহি করতে হবে। একজন রাষ্ট্র বা সরকার প্রধানকে তার নিয়ন্ত্রনাধীন রাষ্ট্র ও তার জনগন সম্পর্কে জবাবদীহি করতে হবে। একজন অভিভাবককে তার পরিবারের সদস্যদের সম্পর্কে জবাবদীহি করতে হবে। মা বাবাকে সন্তান সম্পর্কে জবাবদীহি করতে হবে। সন্তান ধর্ষক হলে, সন্তান সন্ত্রাসী হলে এর জবাবদীহি মা- বাবাকেই দিতে হবে। এমসি কলেজ হোস্টেলে গণধর্ষন ঘটনায় যারাই জড়িত তাদের মা -বাবাকে এর দায়-দায়িত্ব নিতেই হবে। বরগুনার রিফাত শরিফ হত্যাকান্ডের ব্যাপারে যদিও দোষীদের ফাঁসি হয়েছে, তবুও মিন্নী কিংবা অন্য অপরাধীদের মা -বাবারা এর দায় এড়াতে পারেন না। সন্তানকে সুশিক্ষা দেয়া মা বাবার কর্তব্য। কর্তব্যে অবহেলার জবাব অবশ্যই দিতে হবে। কিয়ামতের দিন এমনতিই কেউ পার পাবে না। মুফতি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন- লোকমান হাকিম আল্লাহর প্রিয় বান্দা ছিলেন। তাঁর কথা পবিত্র কোরআনে স্থান পেয়েছে। তার নামে পবিত্র কোরআনে সূরা নাজিল হয়েছে। সেই লোকমান হাকিম তাঁর ৭ বছরের ছেলেকে প্রথমেই আল্লাহর একত্ববাদ, নামাজ, ন্যায় কথা প্রচারে কি কি বাধা আসতে পারে তা শিক্ষা দিয়েছেন। আর আমরা আমাদের ৭ বছরের সন্তানদেরকে অর্থহীন হাকডুম বাকডুম শেখাই। ইসলাম থেকে বহু দুরে আমরা বসবাস করছি। যেখানে ইসলাম নেই, আদব কায়দার শিক্ষা নেই, আল্লাহর একত্ববাদের শিক্ষা নেই, নামাজ নেই, সেখানে ধর্ষক, খুনি, ডাকাত তৈরী হবে না তো কি তৈরী হবে! যেখানে সন্তানের প্রতি হক্ব আদায় করা হয় না, সেখানে বৃদ্ধাশ্রম তৈরী হবে না তো কি তৈরী হবে! তিনি বলেন- দাম্ভিকতা পরিহার করতেই হবে। আমাদের সমাজে যারা ক্ষনিকের দাম্ভিকতা দেখায় তারা আল্লাহর কাছে আসলে পিপিলিকার মতোও না। তিনি ইসলামের বাণী প্রচারে নমনীয়তা, ভদ্রতা, সৌজন্যতাবোধ প্রয়োগের আহবান জানিয়ে বলেন- উদ্ভট আওয়াজে ধর্মও প্রচার করা যাবে না। নেচে গেয়ে ওয়াজও করা যাবে না। কারণ এসব ইসলামের সাথে সাংঘর্ষিক।