ঢাকা ১০:২২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত Logo গ্যানিংগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে নানা আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উদযাপন Logo মহান বিজয় দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে বানিয়াচং মডেল প্রেসক্লাব Logo দেশবাসীকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ‘বানিয়াচং ইসলামি নাগরিক ফোরাম’ নেতৃবৃন্দ Logo নূরানী শিক্ষা বোর্ডে মেধা তালিকায় ২য় হয়েছে গ্যানিংগঞ্জ বাজার নূরানী মাদ্রাসার ছাত্রী মুনতাহা আক্তার Logo বানিয়াচংয়ে ১২কেজি গাঁজাসহ কুখ্যাত ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার Logo বানিয়াচং শাহজালাল কে.জি স্কুল ২০২৩ বৃত্তি পরীক্ষায় ঈর্ষণীয় সাফল্য Logo চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন ডা. ইলিয়াছ একাডেমির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত Logo ৪০তম তাফসিরুল কোরআন মহা সম্মেলন সফল করায় আলহাজ্ব রেজাউল মোহিত খানের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ Logo ইফার সাবেক ফিল্ড অফিসার আব্দুল ওয়াদুদের মৃত্যুতে জেলা মউশিক কল্যাণ পরিষদ নেতৃবৃন্দের শোক

নবীগঞ্জের কৃষক আবুল হত্যা মামলার ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামী ফয়সল র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার

  • তরঙ্গ ২৪ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৬:২৫:২৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১
  • ১৪৯ বার পড়া হয়েছে

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি :  র‍্যাব-৯ সিপিসি-২(শ্রীমঙ্গল ক্যাম্প)এর অভিযানে
১৮ জানুয়ারি সোমবার দুপুরে নবীগঞ্জ উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়নের দাউদপুর গ্রামের বহল আলোচিত কৃষক আবুল মিয়া হত্যা মামলার মৃত্যু দন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামী মর্তুজ মিয়ার পুত্র ফয়সাল মিয়া (৩৫)কে গ্রেফতার করা হয়েছে।
র‍্যাব সুত্রে জানা যায়, ১৮ জানুয়ারি সোমবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৯সিপিসি-২ (শ্রীমঙ্গল ক্যাম্প)এর একটি অভিযানিক চৌকস দল লেঃ কর্ণেল আবু মুসা মোঃ শরিফুল ইসলাম ও এএসপি আফসান-আল-আলম এর নেতৃত্বে হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ থানার সদরঘাট নামক স্থান থেকে দীঘল বাক ইউনিয়নের দাউদপুর গ্রামের মৃত আপ্তাব মিয়ার পুত্র কৃষক আবুল মিয়া হত্যা মামলার মৃত্যু দন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামী একই গ্রামের মরতুজ মিয়ার পুত্র ফয়সালকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় র্যাব৷ নবীগঞ্জ থানার মামলা নং-৪৪/২৬১ তারিখ ২২শে জুন ২০০৮ ধারা -১৪৭/১৪৮/১৪৯/৩৪১/৩০২ পেনাল কোড ১৮৬০ এর পলাতক আসামী ছিল সে।
উল্লেখিত ঘটনায় র‍্যাব কার্যক্রম শেষে আসামীকে নবীগঞ্জ থানায় সোপর্দ করেছে রাতেই।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আজিজুর রহমান।

উল্লেখ্যঃ উপজেলার দীঘল বাক ইউনিয়নের দাউদপুর গ্রামের কৃষক আবুল মিয়াকে
জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে বিগত ২০০৮ সালের ২২ জুন উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের দাউদপুর জোয়াল ভাঙা হাওর থেকে ফেরার পথে
দাউদপুরের মর্তুজ আলী ও তার লোকজন বাড়ির পাশের একটি ব্রীজের উপর থেকে ধরে নিয়ে কৃষক আবুল মিয়াকে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। এই ঘটনায় রাতেই নিহত আবুলের ভাই সাদিক মিয়া বাদী হয়ে ৮ জনকে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ফলে তদন্ত শেষে পুলিশ আসামী মর্তুজ আলীর স্ত্রী চম্পা বেগমকে বাদ দিয়ে ৭ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট প্রদান করে মামলার আইও। এরই প্রেক্ষিতে ১৪ জন স্বাক্ষীর জবানবন্দী গ্রহণ শেষে বিজ্ঞ আদালত ৭জন আসামীকে মৃত্যু দন্ডের রায় দেন৷
ওই রায় ঘোষণার পর পরই একেক করে সব পলাতক আসামীদের গ্রেফতার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর লোকজন৷ সর্বশেষ পলাতক আসামী ফয়সাল গ্রেফতার হওয়ার খবরে নিহতের পরিবারের লোকজন স্বস্তি প্রকাশ করে আসামীদের বিরুদ্ধে দ্রুত রায় কার্যকর করতে সরকারের প্রতি জোর দাবী জানান।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত

নবীগঞ্জের কৃষক আবুল হত্যা মামলার ফাঁসির দন্ডপ্রাপ্ত আসামী ফয়সল র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার

আপডেট সময় ০৬:২৫:২৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি :  র‍্যাব-৯ সিপিসি-২(শ্রীমঙ্গল ক্যাম্প)এর অভিযানে
১৮ জানুয়ারি সোমবার দুপুরে নবীগঞ্জ উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়নের দাউদপুর গ্রামের বহল আলোচিত কৃষক আবুল মিয়া হত্যা মামলার মৃত্যু দন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামী মর্তুজ মিয়ার পুত্র ফয়সাল মিয়া (৩৫)কে গ্রেফতার করা হয়েছে।
র‍্যাব সুত্রে জানা যায়, ১৮ জানুয়ারি সোমবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৯সিপিসি-২ (শ্রীমঙ্গল ক্যাম্প)এর একটি অভিযানিক চৌকস দল লেঃ কর্ণেল আবু মুসা মোঃ শরিফুল ইসলাম ও এএসপি আফসান-আল-আলম এর নেতৃত্বে হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ থানার সদরঘাট নামক স্থান থেকে দীঘল বাক ইউনিয়নের দাউদপুর গ্রামের মৃত আপ্তাব মিয়ার পুত্র কৃষক আবুল মিয়া হত্যা মামলার মৃত্যু দন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামী একই গ্রামের মরতুজ মিয়ার পুত্র ফয়সালকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় র্যাব৷ নবীগঞ্জ থানার মামলা নং-৪৪/২৬১ তারিখ ২২শে জুন ২০০৮ ধারা -১৪৭/১৪৮/১৪৯/৩৪১/৩০২ পেনাল কোড ১৮৬০ এর পলাতক আসামী ছিল সে।
উল্লেখিত ঘটনায় র‍্যাব কার্যক্রম শেষে আসামীকে নবীগঞ্জ থানায় সোপর্দ করেছে রাতেই।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আজিজুর রহমান।

উল্লেখ্যঃ উপজেলার দীঘল বাক ইউনিয়নের দাউদপুর গ্রামের কৃষক আবুল মিয়াকে
জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে বিগত ২০০৮ সালের ২২ জুন উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের দাউদপুর জোয়াল ভাঙা হাওর থেকে ফেরার পথে
দাউদপুরের মর্তুজ আলী ও তার লোকজন বাড়ির পাশের একটি ব্রীজের উপর থেকে ধরে নিয়ে কৃষক আবুল মিয়াকে কুপিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করে। এই ঘটনায় রাতেই নিহত আবুলের ভাই সাদিক মিয়া বাদী হয়ে ৮ জনকে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ফলে তদন্ত শেষে পুলিশ আসামী মর্তুজ আলীর স্ত্রী চম্পা বেগমকে বাদ দিয়ে ৭ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট প্রদান করে মামলার আইও। এরই প্রেক্ষিতে ১৪ জন স্বাক্ষীর জবানবন্দী গ্রহণ শেষে বিজ্ঞ আদালত ৭জন আসামীকে মৃত্যু দন্ডের রায় দেন৷
ওই রায় ঘোষণার পর পরই একেক করে সব পলাতক আসামীদের গ্রেফতার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর লোকজন৷ সর্বশেষ পলাতক আসামী ফয়সাল গ্রেফতার হওয়ার খবরে নিহতের পরিবারের লোকজন স্বস্তি প্রকাশ করে আসামীদের বিরুদ্ধে দ্রুত রায় কার্যকর করতে সরকারের প্রতি জোর দাবী জানান।