ঢাকা ০৩:২১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
Logo সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত Logo গ্যানিংগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে নানা আয়োজনে মহান বিজয় দিবস উদযাপন Logo মহান বিজয় দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছে বানিয়াচং মডেল প্রেসক্লাব Logo দেশবাসীকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ‘বানিয়াচং ইসলামি নাগরিক ফোরাম’ নেতৃবৃন্দ Logo নূরানী শিক্ষা বোর্ডে মেধা তালিকায় ২য় হয়েছে গ্যানিংগঞ্জ বাজার নূরানী মাদ্রাসার ছাত্রী মুনতাহা আক্তার Logo বানিয়াচংয়ে ১২কেজি গাঁজাসহ কুখ্যাত ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার Logo বানিয়াচং শাহজালাল কে.জি স্কুল ২০২৩ বৃত্তি পরীক্ষায় ঈর্ষণীয় সাফল্য Logo চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন ডা. ইলিয়াছ একাডেমির ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নির্বাচিত Logo ৪০তম তাফসিরুল কোরআন মহা সম্মেলন সফল করায় আলহাজ্ব রেজাউল মোহিত খানের কৃতজ্ঞতা প্রকাশ Logo ইফার সাবেক ফিল্ড অফিসার আব্দুল ওয়াদুদের মৃত্যুতে জেলা মউশিক কল্যাণ পরিষদ নেতৃবৃন্দের শোক

গোটা ইউরোপের সবচেয়ে বড় পর্যটন নগরী স্পেনের বার্সেলোনা

  • তরঙ্গ ২৪ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৪:১৯:০৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২ ডিসেম্বর ২০২০
  • ১৬১ বার পড়া হয়েছে

সাইফুল আমিন, স্পেন থেকে: স্পেনের বার্সেলোনা আলো ঝলমলে এ শহড়টি গোটা ইউরোপের সবচেয়ে বড় পর্যটন নগরী। ঐতিহাসিক নথিপত্র বলছে, নিওলিথিক কাল থেকেই মানব বসতির শুরু হলেও খ্রিস্টপূর্ব প্রথম শতাব্দীর শেষদিকে রোমানদের হাতে প্রতিষ্ঠিত হয় বার্সেলোনা উপনিবেশ। যা পরবর্তীতে রূপ নেয় ফুটবল আর শিল্প সাহিত্যের বার্সেলোনায়। তাবৎ দুনিয়ায় অর্থনৈতিক আর রাজনৈতিক স্বাধিকার লড়াইয়ের গল্প বলতে গেলে একবাক্যে মনে আসবে কাতালুনিয়ার নাম। যার রাজধানী আজকের বার্সেলোনা। শুরুতে ছিলো মাত্র হাজারখানেক বাসিন্দা নিয়ে গড়ে ওঠা উপনিবেশ। পুরো শহর ঘেরা ছিলো প্রতিরক্ষা প্রাচীর দিয়ে। যার চিহ্ন এখনও জ্বল-জ্বলে আলোকিত। ২শ বছরেরও বেশি সময় বার্সেলোনা ছিলো মুসলিম শাসকদের অধীনে। যা খ্রিষ্টানদের হাত ধরে পরবর্তীতে পরিণত হয় ক্যারোলিং সাম্রাজ্যের কাউন্টি কোর্টের প্রধান আবাসস্থলে। এতেই মধ্যযুগীয় শাসনামলে পশ্চিম ভূমধ্যসাগরের অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক কেন্দ্র হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয় বার্সেলোনা। টেক্সটাইল শিল্পের বিকাশের মাধ্যমে ১৯ শতকের মাঝামাঝিতে সাংস্কৃতিক আচার রীতি পুনরুদ্ধার শুরু হয় বার্সেলোনায়। যা পরিচিতি পায় রেনাইক্সেনিয়া নামে। তবে এ বছর করোনা মহামারীর কারনে ব্যবসা বাণিজ্য অনেকটাই মন্দাভাব লক্ষ্য করা যায়। তবে, আধুনিক নগরী হিসেবে বার্সেলোনা গড়ে ওঠে বিংশ শতাব্দীর শুরুতেই। এ সময়ে বিখ্যাত স্থপতি আন্তোনি গৌডি তৈরি করেন কাসা মিলি, কাসা বাট্টেলা এবং সাগ্রাডা ফ্যামেলিয়া গির্জার মতো বিশ্ববিখ্যাত নকশাগুলো। যদিও পরবর্তীতে গৃহযুদ্ধে বিপাকে পড়া বার্সেলোনা ১৯৭৮ সালে পুনরুদ্ধার করে গণতন্ত্র, ফিরে পায় অর্থনৈতিক শক্তি আর কাতালান ভাষা।

ট্যাগস
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

সাংবাদিক মঈন উদ্দিন এঁর পিতার মৃত্যুতে তরঙ্গ২৪.কম পরিবার গভীরভাবে শোকাহত

গোটা ইউরোপের সবচেয়ে বড় পর্যটন নগরী স্পেনের বার্সেলোনা

আপডেট সময় ০৪:১৯:০৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২ ডিসেম্বর ২০২০

সাইফুল আমিন, স্পেন থেকে: স্পেনের বার্সেলোনা আলো ঝলমলে এ শহড়টি গোটা ইউরোপের সবচেয়ে বড় পর্যটন নগরী। ঐতিহাসিক নথিপত্র বলছে, নিওলিথিক কাল থেকেই মানব বসতির শুরু হলেও খ্রিস্টপূর্ব প্রথম শতাব্দীর শেষদিকে রোমানদের হাতে প্রতিষ্ঠিত হয় বার্সেলোনা উপনিবেশ। যা পরবর্তীতে রূপ নেয় ফুটবল আর শিল্প সাহিত্যের বার্সেলোনায়। তাবৎ দুনিয়ায় অর্থনৈতিক আর রাজনৈতিক স্বাধিকার লড়াইয়ের গল্প বলতে গেলে একবাক্যে মনে আসবে কাতালুনিয়ার নাম। যার রাজধানী আজকের বার্সেলোনা। শুরুতে ছিলো মাত্র হাজারখানেক বাসিন্দা নিয়ে গড়ে ওঠা উপনিবেশ। পুরো শহর ঘেরা ছিলো প্রতিরক্ষা প্রাচীর দিয়ে। যার চিহ্ন এখনও জ্বল-জ্বলে আলোকিত। ২শ বছরেরও বেশি সময় বার্সেলোনা ছিলো মুসলিম শাসকদের অধীনে। যা খ্রিষ্টানদের হাত ধরে পরবর্তীতে পরিণত হয় ক্যারোলিং সাম্রাজ্যের কাউন্টি কোর্টের প্রধান আবাসস্থলে। এতেই মধ্যযুগীয় শাসনামলে পশ্চিম ভূমধ্যসাগরের অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক কেন্দ্র হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয় বার্সেলোনা। টেক্সটাইল শিল্পের বিকাশের মাধ্যমে ১৯ শতকের মাঝামাঝিতে সাংস্কৃতিক আচার রীতি পুনরুদ্ধার শুরু হয় বার্সেলোনায়। যা পরিচিতি পায় রেনাইক্সেনিয়া নামে। তবে এ বছর করোনা মহামারীর কারনে ব্যবসা বাণিজ্য অনেকটাই মন্দাভাব লক্ষ্য করা যায়। তবে, আধুনিক নগরী হিসেবে বার্সেলোনা গড়ে ওঠে বিংশ শতাব্দীর শুরুতেই। এ সময়ে বিখ্যাত স্থপতি আন্তোনি গৌডি তৈরি করেন কাসা মিলি, কাসা বাট্টেলা এবং সাগ্রাডা ফ্যামেলিয়া গির্জার মতো বিশ্ববিখ্যাত নকশাগুলো। যদিও পরবর্তীতে গৃহযুদ্ধে বিপাকে পড়া বার্সেলোনা ১৯৭৮ সালে পুনরুদ্ধার করে গণতন্ত্র, ফিরে পায় অর্থনৈতিক শক্তি আর কাতালান ভাষা।