সোমবার | ২৭শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম

বানিয়াচংয়ে বন্যার অবনতি: ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

প্রকাশিত :

শিব্বির আহমদ আরজু :  হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে বন্যার অবনতি ঘটেছে। পাহাড়ি ঢল ও কুশিয়ারা নদী থেকে নামা পানিতে উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের মধ্যে ১১টি ইউনিয়নের অধিকাংশ বাড়ি-ঘর ডুবে গেছে। সদরেরও ৪টি ইউনিয়নের অনেক বাড়িতে পানি উঠেছে। ডুবে গেছে রাস্তা ঘাট। বড় ভোগান্তিতে পড়েছেন গবাদি পশু পালনকারিরা।

অনেকে কমমূল্যে সেই সব পশু বিক্রি করছেন। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের বাড়িতে এবং আশ্রয়ণ কেন্দ্রে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে আসা বরাদ্ধ দিচ্ছেন হবিগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এডভোকেট আব্দুল মজিদ খান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আবুল কাশেম চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পদ্মাসন সিংহ।

উপজেলার ত্রাণ ও দুর্যোগ অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ১০৭টি আশ্রয় কেন্দ্রে ২ হাজার ১শ’ ১২ পরিবার এসেছে। এ পর্যন্ত বরাদ্ধ দেয়া হয়েছে ৪৫ মেট্টিক টন। শুকনো খাবার দেয়া হয়েছে ৩শ’ প্যাকেট। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানিয়েছে, এ পর্যন্ত ৫ হাজার ৯০০ হেক্টর রোপা আমন, ১ হাজার ৬৪০ হেক্টর আউশ এবং ৫ হাজার ৬০০ হেক্টর বোনা আমনের জমি সম্পূর্ণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৬১ কোটি টাকা। মৎস্য সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানিয়েছে, উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নে ৯০০ পুকুর সম্পূর্ণভাবে ডুবে গেছে। এতে ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ২০ কোটি টাকা।

মোঃ আবুল নামে এক ব্যক্তি জানান, বন্যায় আমার ৩টি পুকুর তলিয়ে গেছে। মোশাররফ হোসেন জানান, অনেক চেষ্টা করেও পুকুরগুলো রক্ষা করতে পারিনি। হু হু করে পানি বেড়ে যাওয়ায় পুকুরের পাড় ডুবে যাওয়ার পর জাল দিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি। এতে প্রায় ৫ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পদ্মাসন সিংহ জানান, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে ত্রাণ অথবা চাল দিচ্ছি। কেউ যদি অসুস্থ হয় তাহলে আমাদের মেডিক্যাল টিমের সাথে যোগাযোগ করলে চিকিৎসা দেয়া হবে।

আজকের সর্বশেষ সব খবর